মুহাররম ১৪৪২   ||   সেপ্টেম্বর ২০২০

নতুন মাস নতুন বছরের একটি দুআ

মাওলানা সায়ীদুল হক

ইমাম আবুল কাছেম বাগাভী রাহ. (৩১৭ হি.) ‘মুজামুস সাহাবা’ কিতাবে সহীহ সনদে নতুন মাস ও নতুন বছরের শুরুতে পড়ার একটি দুআ উল্লেখ করেছেন। সাহাবী আবদুল্লাহ বিন হিশাম রা. বলেন-

كان أصحاب رسول الله صلى الله عليه وسلم يتعلمون هذا الدعاء كما يتعلمون القرآن إذا دخل الشهر أو السنة

 অর্থাৎ সাহাবায়ে কেরাম নতুন মাস বা নতুন বছর শুরুর এ দুআটি তেমন গুরুত্ব দিয়ে শিখতেন, যেভাবে কুরআনুল কারীম শিখতেন। দুআটি হল-

اللّهُمَّ أَدْخِلْهُ عَلَيْنَا بِالأَمْنِ وَالِإيْمَانِ وَالسَّلَامَةِ وَالإِسْلَامِ وَجِوَارٍ مِنَ الشَّيطَانِ وَرِضوَانٍ مِنَ الرَّحْمنِ.

(قال الحافظ ابن حجر في الإصابة : وهذا موقوف على شرط الصحيح.)

হে আল্লাহ! আপনি আমাদের মাঝে এ মাস/বছরের আগমন ঘটান- শান্তি ও নিরাপত্তা এবং ঈমান ও ইসলামের (উপর অবিচলতার) সাথে; শয়তান থেকে সুরক্ষা ও দয়াময় আল্লাহ্র সন্তুষ্টির সাথে। -মুজামুস সাহাবাহ খ. ৩, পৃ. ৫৪৩, বর্ণনা ১৫৩৯, মাকতাবা দারুল বায়ান কুয়েত; আলইসাবাহ ফী তাময়ীযিস সাহাবাহ, ইবনে হাজার আসকালানী, খ. ৪, পৃ. ২৫৬, দারুল জীল, বৈরুত, প্রথম সংস্করণ ১৪১২ হি.

ইসলামী নতুন বছর মুহাররমুল হারামের হিলাল তথা নতুন চাঁদ-এর মাধ্যমে শুরু হয়। হাদীস শরীফে নতুন চাঁদ দেখার একাধিক দুআ বর্ণিত আছে, যা আমাদের অনেকেরই জানা। মুহাররম মাসের হিলাল-নতুন চাঁদ দেখে যে কোনো দুআ পড়া হলেই সেটা মাস শুরুর দুআর সাথে সাথে নতুন বছরের দুআও হবে। কিন্তু আলোচ্য দুআটির বৈশিষ্ট্য হল, এর ব্যাপারে বর্ণনাতে স্পষ্টভাবে এসেছে- এটা নতুন বছরের দুআ। বর্ণনা থেকে এ-ও বুঝা যায় যে, সাহাবায়ে কেরাম এ দুআটির প্রতি অধিক গুরুত্ব দিতেন।

আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে আমল করার তাওফীক দান করুন-আমীন।

 

 

advertisement