জুমাদাল উখরা ১৪৩৫   ||   এপ্রিল ২০১৪

জীবনের মূল্য ও তাওবা

মুহাম্মাদ আবদুলাহ

হে বোন! তোমার নবী আয়েশা রা.-কে বললেন, হে আয়েশা! গোনাহ হয়ে যাওয়ার সাথে সাথে তওবা কর, আলাহর কাছে মাফ চাও। কেননা বান্দা যখন নিজের গোনাহ স্বীকার করে এবং তওবা করে তখন আলাহ তাকে মাফ করে দেন। প্রিয় বোন! কল্পনা কর, তোমার যত আশা যত স্বপ্ন সব তুমি লাভ করেছ, তোমার যত চাহিদা যত আকাঙ্ক্ষা সব তোমার অর্জিত হয়েছে। তারপর তোমারই হেয়ালিপনার কারণে একদিন হঠাৎ করে সব তোমার হাতছাড়া হয়ে গেল। সেদিন তোমার কেমন কান্না পাবে। তুমি কতটা ব্যথিত হবে। বলো, কী আফসোস হবে তোমার! কষ্টে আক্ষেপে অনুশোচনায় তুমি নিজের হাত নিজেই কামড়াতে থাকবে।

এখন বল, এ সবকিছুর চেয়ে হাজার গুণ মূল্যবান তোমার জীবন হেলায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে অথচ সে ব্যাপারে তোমার কোনো অনুভুতিা নেই।

নিশ্চয় তোমার জীবন এমন এক মহা মূল্যবান সম্পদ যার সাথে পৃথিবীর কোনো কিছুর তুলনা হয় না। এ তো এমন এক সম্পদ যা দিয়ে তুমি খরিদ করবে ঐ জান্নাত যা আসমান যমীন সমান পরিব্যপ্ত।

তোমার জীবন তো কিছু শ্বাস প্রশ্বাস ও সেকেন্ড-মিনিটের সমষ্টি। যে শ্বাসটি এখন তোমার থেকে বের হয়ে গেল তা আর তুমি কখনোই ফিরে পাবে না। এরকম কিছু শ্বাস-প্রশ্বাসই এই দুনিয়ায় জীবনে তোমার মূলধন যা দিয়ে তুমি খরিদ করতে পার জান্নাত, তোমার মনের যত চাহিদা হৃদয়ের যত আকাঙ্ক্ষা; যা কখনোই শেষ হবে না, যা কোনোদিন তোমার হাতছাড়া হবে না।  তবে এর জন্য চাই জীবনের সকল গোনাহ থেকে তাওবা, তাওবায়ে নাছূহা। এখন বলো, তুমি কি তোমার জীবনকে তাওবা ছাড়া বিফলে নষ্ট হতে দিবে? ষ

 

 

advertisement