জুমাদাল উখরা ১৪৩৪   ||   এপ্রিল ২০১৩

২৩/০৪/৩৪ হি., ০৬/০৩/১৩ ঈ., বুধবার

আজ ‘মাসিক দ্বীনী মাহফিল’ অনুষ্ঠিত হয়। আজকের মাহফিলে আসরের পর আলোচনা করেছেন মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুল মাজীদ। তিনি বলেন, ইসলামের বিধানাবলীর প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালবাসা পোষণ করা এবং তার আদব রক্ষা করা ঈমানের দাবি। সাথে সাথে আল্লাহ ও তার রাসূলের আযমত ও মহববত, প্রেম ভালবাসা অন্তরে থাকা জরুরি।

যদি আমরা আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের প্রতি অগাধ প্রেম ও ভালবাসা রেখে ইসলামের যাবতীয় বিধানাবলীর প্রতি শ্রদ্ধা ও আদব রক্ষা করে তা পালন করতে পারি তাহলেই আমরা কামিয়াব হতে পারব।  

বাদ মাগরিব আলোচনা করেছেন মাওলানা মুহাম্মাদ ইয়াহইয়া ছাহেব। তিনি বলেন, আল্লাহ তাআলা পৃথিবীবাসীকে কত শত নেয়ামত দিয়েছেন। আল্লাহই বলেছেন, (অর্থ) তোমরা যদি তার নেয়ামত গণনা কর, তাহলে তা গুনে শেষ করতে পারবে ন। (সূরা ইবরাহীম : ৩৪)

এত সব নিয়ামতের মধ্য হতে একটি নিয়ামতের কথা আল্লাহ তাআলা বিশেষভাবে স্বরণ করিয়ে দিয়েছেন। বলেছেন, (অর্থ) আল্লাহ মুমিনদের প্রতি বড় অনুগ্রহ করেছেন। তিনি তাদের মাঝে তাদের মধ্য থেকে একজন রাসূল প্রেরণ করেছেন। (সূরা আলে ইমরান : ১৬৪)

পৃথিবীবাসীর জন্য এই রাসূল অন্য লাখো কোটি নেয়ামতের মাঝে সবচেয়ে বড় নেয়ামত। কারণ, যে কোনো মানুষের দুনিয়া ও আখেরাতের সফলতা নির্ভর করে যেই শিক্ষার উপর সেই শিক্ষা পৃথিবীবাসীকে উপহার দিয়েছেন এই রাসূল।

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পৃথিবী থেকে চলে যাবার পর তাঁর হাতে গড়া সাহাবায়ে কেরামকে রেখে গেছেন এই দায়িত্ব পালন করার জন্য। এরপর সেই ক্রমধারায় যুগে যুগে নবীদের উত্তরসূরী হক্কানী উলামায়ে কেরাম সেই দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

তাই দ্বীনের সেই শিক্ষা গ্রহণ করতে হলে হক্কানী উলামায়ে কেরাম থেকে তা লাভ করতে হবে। 

 

 

advertisement