রবিউস সানী ১৪৩১   ||   এপ্রিল ২০১০

মেঘের দ্যুতি

মুলতানের একটি বাগানে এক রাতে ছিল হযরত মাওলানা সাইয়েদ আতাউল্লাহ শাহ বুখারী রাহ.-এর বয়ান করার প্রোগ্রাম। সে রাতে এশার নামাযের পর শুরু করে তিনি বয়ান করেন ফজরের আযান পর্যন্ত। বয়ানের মাঝামাঝি সময় রাত প্রায় একটার দিকে যখন শ্রোতাদের বড় একটি অংশের মাঝে তিনি ঘুম ঘুম ভাব দেখলেন তখন তিনি শুরু করলেন সূরায়ে ইয়াসীনের তেলাওয়াত। তার কণ্ঠস্বরে এতই প্রভাব আল্লাহ তাআলা রেখেছিলেন যে, গোটা মজমা তখন জেগে উঠল। আল্লাহর কালামে এ পরিমাণ গাম্ভীর্য ও বিগলন ছিল যে, সব শ্রোতাই তার তেলাওয়াত শুনে কাঁদছিলেন। এদিকে তখন মজমার উপর বৃক্ষমাথা সমান উচ্চতায় একটি শুভ্র বর্ণের মেঘখণ্ড এসে অবস্থান করছিল। সে মেঘখণ্ডে দেখা যাচ্ছিল সাদা সাদা দ্যুতি। মজমায় উপস্থিত প্রায় সব লোকই দৃশ্যটি দেখল। যখন হযরত আতাউল্লাহ শাহ বুখারী সূরায়ে ইয়াসীনের তেলাওয়াত সমাপ্ত করলেন তখন মেঘখণ্ডটি মুহূর্তের মধ্যে গায়েব হয়ে গেল। এরপর এক জিজ্ঞাসার জবাবে হযরত মাওলানা আতাউল্লাহ শাহ বুখারী বললেন, আল্লাহর কালাম শোনার জন্য আল্লাহ তাআলার অপর মাখলুক এসে হাজির হয়েছিলেন। অর্থাৎ তারা ছিলেন ফেরেশতা। [আকাবিরে দেওবন্দ কে ঈমান আফরোয ওয়াকেআত]

 

advertisement