রবিউস সানী ১৪২৯   ||   এপ্রিল ২০০৮

মূল্যবৃদ্ধিতে পাঠক শুভানুধ্যায়ীদের অবস্থান

সফর ১৪২৯ হিজরী সংখ্যায় সম্পাদকীয় পৃষ্ঠায় পাঠক, শুভাকাঙ্ক্ষীদের পরামর্শ চাওয়া হয়েছে। বিষয়টা পড়ে একটা হাদীসের অংশ বারবার মনে পড়ছিল। ফাতুবা লিল গুরাবা। মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সাহাবীদের বললেন, ইসলাম আবির্ভূত হয়েছে অপরিচিত অবস্থায়, আবার তা পূর্বের অবস্থায় ফিরে যাবে। তারপর তিনি সেসব মানুষের  জন্য সুসংবাদ দিলেন, যারা দ্বীনের সংশোধন করবে তা বিকৃত হয়ে যাওয়ার পর।

আলকাউসার অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে এ কাজটা করে যাচ্ছে বলে পাঠকগণ মনে করেন। বিভিন্ন বাতিল ফিরকার মুখোশ উন্মোচন করে এবং  বিদআত ও সুন্নাতের পার্থক্য প্রকাশের মাধ্যমে সেটা অব্যাহত আছে। হাউজে কাউসারের অমীয় সুধার মত বিজ্ঞজন তা পান করে যাচ্ছে। আহলে ইলমের নিকট কিতাব অতি প্রিয় জিনিস। তাইতো দেশ বিদেশের কিতাব সংগ্রহে আলকাউসার কর্তৃপক্ষ তৎপর। পৃথিবীতে এমন শিক্ষাব্যবস্থা খুব কমই পাওয়া যাবে যেখানে ক্লাশ উত্তীর্ণের পর পাঠ্যপুস্তকের কোন মূল্য থাকে। দুনিয়ার সর্বোচ্চ পত্রপত্রিকার অবস্থাও তাই। মেয়াদ উত্তীর্ণের আগেই সেগুলো চলে যায় ফেরীওয়ালার ঝুড়িতে।

পক্ষান্তরে দ্বীনী পত্র-পত্রিকা, বিশেষত মাসিক আলকাউসার হচ্ছে এর ব্যতিক্রম। এগুলোর প্রয়োজন এক বার পড়ে ফেললেই ফুরিয়ে যায় না।

এবার মূল বিষয়, কালের কষাঘাতে সংকটময় মুহূর্ত অনিবার্য। এই সংকটের মুকাবেলা করে সিরাতে

মুস্তাকীমের পথে এগিয়ে চলাই বুদ্ধিমানের কাজ। আমরা আলকাউসারের সাথে আছি। আগামীতেও থাকব ইনশাআল্লাহ। সময়ের চাহিদানুযায়ী পত্রিকার কিছুটা মূল্যবৃদ্ধি অধিক যুক্তিযুক্ত। আশা করি, সম্মানিত পাঠকবর্গ ও শুভানুধ্যায়ীগণ স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া দিয়ে এর চলার গতি আরো গতিময় করবেন। আলকাউসার মহানবী সা.-এর খোশখবরী নিয়ে সানন্দে এগিয়ে যাবে এটাই কাম্য। ধন্যবাদ সবাইকে।

হায়াত আল ফিরদাউস

জামেয়া পটিয়া

চট্টগ্রাম

 

 

advertisement