শাওয়াল ১৪৪০ || জুন ২০১৯

নাঈম হালীম - নিউজার্সি

৪৭৮৩. প্রশ্ন

আমার মামা আমেরিকা প্রবাসী। তার দুটো কিডনী প্রায় অচল। তাকে এক দিন পরপর ডায়ালাইসিস করতে হয়। ডাক্তারের নির্দেশনা অনুযায়ী তিনি কেবল নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট খাবার গ্রহণ করতে পারেন। তার হাই প্রেসারও আছে। তাকে প্রতিদিন কিডনীর জন্য এবং হাই প্রেসারের জন্য বেশ কিছু ওষুধ খেতে হয়। গত রমযান মাসে সবাই নিষেধ করা সত্ত্বেও তিনি প্রথম রোযা রাখেন। সারাদিন রোযা রাখায় তিনি বেশ দুর্বল হয়ে পড়েন। বেশি সমস্যা হয়- নিয়ম মাফিক ওষুধ না খাওয়ার কারণে। এতে তার প্রেসার হাই হয়ে যায়। আর রমযান মাসে আমেরিকায় দিন দীর্ঘ (প্রায় ১৬/১৭ ঘণ্টা) হওয়ার কারণে কেবল রাতে ওষুধ খেলে হয় না। তাই বেশিরভাগ দিনই তার আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও তিনি রোযা রাখতে পারেননি। মাঝে খুব কষ্ট হওয়া সত্ত্বেও ১/২টি রোযা তিনি রেখেছেন।

আমার জানার বিষয় হল, তিনি কি তার রোযার পরিবর্তে ফিদয়া দিতে পারবেন? আর ফিদয়া দিলে কীভাবে আদায় করবেন।

উত্তর

প্রশ্নের বিবরণ অনুযায়ী আপনার মামার জন্য রোযা রাখা যেহেতু খুবই কষ্টকর এবং দৃশ্যত তার সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনাও ক্ষীণ তাই তিনি রোযার পরিবর্তে ফিদয়া দিতে পারবেন।

ফিদয়া হল, প্রত্যেক রোযার পরিবর্তে একজন দরিদ্রকে দু’বেলা খাবার খাওয়ানো কিংবা এমন কোনো ব্যক্তিকে দু’বেলা খাবারের মূল্য সদকা করা।

প্রকাশ থাকে যে, আপনার মামা যেহেতু আমেরিকা থাকেন তাই তিনি মূল্য দিয়ে ফিদয়া আদায় করতে চাইলে সেখানকার মূল্য হিসাবেই আদায় করতে হবে।

উল্লেখ্য, এভাবে ফিদয়া আদায়ের পর তিনি যদি কখনো সুস্থ হয়ে যান তাহলে ঐ রোযাগুলো তিনি কাযা করে নিবেন।

-সহীহ বুখারী, হাদীস ৪৫০৫; কিতাবুল হুজ্জাহ আলা আহলিল মাদীনাহ ১/২৫৫; আলমুহীতুল বুরহানী ৩/৩৫৯, ৩৬১; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৬৫; মুখতারাতুন নাওয়াযিল ১/৪৫৯, ৪৬৪; ফাতহুল কাদীর ২/২৭৭; আলবাহরুর রায়েক ২/২৮৬; রদ্দুল মুহতার ২/৪২৭

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement