শাওয়াল ১৪৩৯ || জুলাই ২০১৮

সালমান - সদর দক্ষিণ, কুমিল্লা

৪৪৮০. প্রশ্ন

আমাদের গ্রামের একজন মহিলা তার অবিবাহিত তিন সন্তান নিয়ে বসবাস করে। তাদের থাকার মত একটি ভালো টিনশেড বাড়ী আছে। প্রায় দুই লক্ষাধিক টাকা সুদের উপর দিয়ে রেখেছে। আর তিন সন্তান কাঠমিস্ত্রী। মাস প্রতি তাদের সম্মিলিত আয় চল্লিশ হাজারের উপরে। পরিবারের কোনো ঋণ নেই। সন্তানরা টাকার বড় অংশই মায়ের হাতে দেয়। এই মহিলা সন্তানদের বাধা সত্ত্বেও যাকাত ও ফিতরা গ্রহণ করে এবং কেউ না দিলে মানুষের নিকট তার বদনাম ছড়ায়, যার কারণে মানুষও বাধ্য হয়ে তাকে দেয়।

আমার জানার বিষয় হল, তাকে কি যাকাত দেওয়া যাবে? যদি না দেয়া যায় তাহলে যারা জেনেও দেয় তাদের যাকাত ও ফিতরা কি আদায় হবে?

উত্তর

প্রশ্নের বর্ণনা অনুযায়ী এই মহিলা যাকাত ফিতরার উপযুক্ত নয়। বরং দুই লক্ষ টাকার নগদ অর্থ থাকায় তার উপর যাকাত ফরয। অতএব তাকে যাকাত ও ফিতরা দেওয়া যাবে না এবং তার অবস্থা জানা সত্ত্বেও তাকে যাকাত ও ফিতরা প্রদান করলে তা আদায় হবে না। সে মানুষের নিকট দুর্নাম ছাড়াবে- এই অজুহাতেও তাকে যাকাত দেওয়া যাবে না। বরং লোকজনকে তার প্রকৃত অবস্থা জানিয়ে দেওয়া দরকার। যেন মানুষ প্রতারিত না হয়।

-বাদায়েউস সানায়ে ২/১৫৮; শরহু মুখতাসারিত তহাবী ২/৩৯০; আলমুহীতুল বুরহানী ৩/২১৫; তাবয়ীনুল হাকায়েক ২/১২৯; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৪২

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement