রবিউল আউয়াল ১৪৩৯ || ডিসেম্বর ২০১৭

মুহাম্মাদ ওয়াজ উদ্দীন - শাহজাহানপুর, ঢাকা

৪২৭৩. প্রশ্ন

আমি একজনের কাছে একটি গরু বর্গা দিলাম। এই শর্তে যে, গরুটি যে দামে ক্রয় করলাম তা আমার থাকবে। আর পালনকারী পালার পর যে দামে বিক্রয় করা হবে তা থেকে আমার ক্রয়ের টাকা রেখে যা থাকবে তা থেকে এক ভাগ আমার আর এক ভাগ পালনকারীর। এইভাবে বর্গা দেওয়া জায়েয কি না? অনেকে বলে জায়েয। আবার অনেকে বলে জায়েয নয়। যদি জায়েয না হয় কী কী কারণে জায়েয হবে না? বিস্তারিত জানালে উপকৃত হব।

 

উত্তর

গরু বর্গার প্রশ্নোক্ত পদ্ধতিটি শরীয়তসম্মত নয়। কারণ লালন-পালনের পর গরুটি কত দামে বিক্রি হবে এবং তাতে কত লাভ হবে তা জানা নেই। ফলে যে পালবে তার খরচাদি বাদ দিয়ে সে কিছু পাবে কি না, এবং পেলেও কম-বেশি কত পাবে এর কিছুই নিশ্চিত নয়। তাই কখনো দেখা যায়, যে পালবে সে তার ন্যায্য পরিশ্রমিক ও খরচাদি থেকেও বঞ্চিত হয়ে যায়। যা শরীয়তনিষিদ্ধ আলগারারের অন্তর্ভুক্ত।

উল্লেখ্য যে, কাউকে গরু পালতে দিলে তা নির্ধারিত পারিশ্রমিকের বিনিময়েই দিতে হবে। সুতরাং লালনকারী তার নির্ধারিত পারিশ্রমিকের হকদার হবে। আর পুরো গরু মালিকের বলে ধর্তব্য হবে।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৮/৩৯৯; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ২/৩৩৫; রদ্দুল মুহতার ৪/৩২৭; আলমুগনী, ইবনে কুদামাহ হাম্বালী ৮/১৫

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement