মুহাররম ১৪৩৭ || নভেম্বর ২০১৫

হাবিবুল্লাহ - জামিয়া কুরআনীয়া এমদাদুল উলুম ফুলছোয়া, চাঁদপুর

প্রশ্ন

বাদ সালাম। হুযুর আমি আগামী বছর ইনশাআল্লাহ, হেদায়া ও জালালাইন পড়বো। সে হিসেবে হুযুরের পরামর্শ অনুযায়ী প্রস্তুতিমূলক মুতালাআ শুরু করেছি। যেমন, فتح القدير   ও ما ينبغي به العناية لمن يطالع الهداية  ইত্যাদি। বর্তমানে আমার দুটি বিষয় জানার ইচ্ছা।

ক) হুযুরের কিতাব তালিবানে ইলম : পথ ও পাথেয়’-হেদায়া : সহায়ক গ্রন্থ ও মুতালাআ পদ্ধতিশিরোনামের অধীনে বলা হয়েছে, “মাসায়েল ও আহকাম ছাড়াও অতিরিক্ত বেশ কিছু ইলম ও ফন এতে (হেদায়া গ্রন্থে) সন্নিবেশিত হয়েছে।সে অতিরিক্ত ইলম ও ফনগুলো কী কী তার কিছু বিবরণ জানতে চাই।

 

খ) তাতে আরও বলা হয়েছে, আর দলীল ও ইস্তেদলালের পরস্পর নকদ ও তাফসীল বুঝতে হবে উসূলে ফিকহ ও ইলমে জাদালের কাওয়ায়েদের আলোকে। বিষয়টি এক দুটি উদাহরণের মাধ্যমে সবিস্তাতের বুঝিয়ে দিলে উপকৃত হতাম।

উত্তর

(ক) হেদায়া গ্রন্থে মাসায়েল ও আহকাম ছাড়াও অতিরিক্ত বেশ কিছু ইলম ও ফন সন্নিবেশিত হয়েছে। যথা :

১. أصول الشريعة .

২. قواعد الفقه وضوابطه.

৩. قواعد أصول الفقه.

৪. علم الجدل.

৫. الأشباه والنظائر.

৬. علم الخلاف/ اختلاف العلماء.

৭. علم الأسرار.

৮. دفع تعارض الأدلة.

৯. الناسخ والمنسوخ.

১০. اختلاف الحديث.

১১. أحكام القرآن.

১২. أحاديث الأحكام وفقهها.

১৩.منهج نقد الأخبار عند الفقهاء السلف.

১৪. أسباب اختلاف الفقهاء.

 

 (খ) হেদায়ার ব্যাখ্যাগ্রন্থ ফাতহুল কাদীর’-এ ইবনুল হুমাম রাহ. উসূলে ফিকহ ও ইলমে জাদালের কাওয়ায়েদের আলোকেই দলীল ও ইস্তেদলালের পরস্পর নকদ ও তাফসীল পেশ করেছেন। এ ধরনের স্থানে অনেক ক্ষেত্রেই তিনি উসূলে ফিকহ ও ইলমে জাদালের পরিভাষাও ব্যবহার করেছেন। সুতরাং খেয়াল করে মুতালাআ করলে আপনি নিজেই এ ধরনের অনেক উদাহরণ ফাতহুল কাদীরথেকে বের করতে পারবেন, ইনশাআল্লাহ।

এই সংখ্যার অন্যান্য শিক্ষা পরামর্শসমূহ পড়ুন

advertisement
advertisement