রবিউস সানী ১৪২৯ || এপ্রিল ২০০৮

শোআইব - তাকমীল, হাটহাজারী মাদরাসা, চট্টগ্রাম

প্রশ্ন

ক. সম্প্রতি অনেকে বেশ জোরালোভাবে কওমী মাদরাসার শিক্ষা সিলেবাস পরিবর্তনের দাবি তুলছেন। আবার অনেকে বলছেন, স্কুলের দশম শ্রেণী পর্যন্ত সবগুলো বই মাদরাসার সিলেবাসভুক্ত করতে হবে। অবশ্য এ ক্ষেত্রে মাদরাসা সিলেবাসভুক্ত কিছু কিতাব বাদ দিতে হবে। সিলেবাসভুক্ত কিতাবগুলোর মধ্যেও আমূল সংস্কার করতে হবে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে যেহেতু উচ্চ শিক্ষার বুনিয়াদ প্রতিষ্ঠিত হয় প্রাথমিক শিক্ষার কাঠামোর উপর তাই প্রাথমিক শিক্ষার ভিত নড়বড়ে হয়ে গেলে উচ্চ শিক্ষা বাধাগ্রস্থ হওয়ার সমূহ আশংকা রয়েছে। সুতরাং মাদরাসার সিলেবাস সংস্কার করলে সেই ভয়ানক আশংকার সম্মুখীন হতে হয় কি না বা শিক্ষার্থীরা ফল লাভে সক্ষম হবে কি না এ ব্যাপারে আপনাদের দৃষ্টিভঙ্গি জানতে চাই।

খ. বর্তমানে মাদানী নেসাবের গ্রহণযোগ্যতা কতটুকু? এই নেসাবে পড়লে কি মুহাক্কিক আলেম হওয়া যাবে? জানতে ইচ্ছুক।

গ. বাব এর খাসিয়াত জানার জন্য আরবী, বাংলা উর্দূ কিছু কিতাবের নাম জানাবেন।

আপনাদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি।


উত্তর

ক. মেরে মুহতারাম! নেসাবের বিষয়টি অতি সংবেদনশীল। এরপর এটি বাস্তব অভিজ্ঞতার বিষয়। শুধু তাত্ত্বিক আলোচনা কিংবা নিছক পর্যালোচনা মূলক বহস এক্ষেত্রে মোটেই ফলদায়ক নয়। এ বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করা বড়দের কর্তব্য। আর একটি পর্যায় পর্যন্ত তারা এ বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা অব্যাহতও রেখেছেন। আলাহ তাআলা কল্যাণের পথ সুগম করুন এবং সকল প্রকার কল্যাণ আমাদেরকে দান করুন।

এ বিষয়ে আপনার আগ্রহ থাকলে আকাবিরের কিছু কিতাব অধ্যয়ন করতে পারেন। যথা- মুফতী যায়েদ মাজাহেরী সংকলিত মুখতালিফ উলূম ওয়া ফুনুন কা নিসাব (আয ইফাদাতে হাকীমুল উম্মত রহ.)।

হামারা তালীমী নেজাম হযরত মাওলানা মুহাম্মদ তকী উসমানী দামাত বারাকাতুহুম, দ্বীনী মাদারেস, নিসাব ওয়া নিজামে তালীম আওর আসরী তাকাযে সংকলনে মাওলানা ডা. হাফেয হাক্কানী মিয়াঁ কাদেরী। এতে ১৯৬৮ সালে দিল্লীতে এবং ১৯৯০ খৃষ্টাব্দে রাঁচী ও দিল্লীতে অনুষ্ঠিত সেমিনারের কার্যবিবরণী, প্রবন্ধ ও আলোচনা সংকলিত হয়েছে।

খ. মাদানী নেসাবের পূর্ণ কাঠামো ( যা অন্তত ষোল বৎসরের নেসাব) এখনো বাস্তবায়িত হয়নি। শুধু মধ্যবর্তী একটি অংশ কয়েক বছর যাবৎ কার্যকর হয়েছে কিন্তু সেটাও নেসাব প্রণেতার পরিকল্পনার পূর্ণ রূপটি ধারণ করেনি। আমি যদ্দুর জানি, এ পর্যন্ত অর্জিত অভিজ্ঞতা অনুযায়ী বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা ও প্রতিকূলতা স্বত্ত্বেও এটি তার লক্ষ্যে সফল দেখা যাচ্ছে। তবে এ প্রসঙ্গে স্বীকৃত কথা এই যে, উত্তম ফলাফলের জন্য শুধু নিসাব ভালো হওয়া যথেষ্ট নয়। শিক্ষার্থীর মেহনত ও মনোযোগ এবং শিক্ষকের অভিজ্ঞতা ও আন্তরিকতা এ ক্ষেত্রে অতি গুরুত্বপূর্ণ।  আর এ বিষয়টি তো সর্বদা পাওয়া যায় না।

মুহাক্কিক আলিম শব্দটি যদি আপনি সঠিক অর্থে ব্যবহার করে থাকেন তবে জেনে রাখা প্রয়োজন যে, নেসাব যতই উচ্চাঙ্গের  হোক মুহাক্কিক হওয়ার জন্য তা শুধু সহযোগীর ভূমিকা পালন করতে পারে। মুহাক্কিক পর্যায়টি অনেক উচু পর্যায়। এ পর্যায়ে উন্নীত হতে হলে অনেকগুলো ধাপ অতিক্রম করতে হয় এবং এ জন্য আহলে ফিকহ ও আহলে দিল মুহাক্কিক আলিমের সাহচর্যও প্রয়োজন হয়।

মাদানী নেসাব সম্পর্কে আততরীক ইলাল বালাগাহর ভূমিকার আলোচনা অবশ্যই অধ্যয়ন করুন। যে বিষয়গুলো ওখানে স্পষ্টভাবে লিখে দেওয়া আছে সে সম্পর্কে অধিকাংশ মানুষের কোনো ধারণা নেই।

গ. এ প্রশ্নের জন্য ৪নং প্রশ্ন ক.-এর উত্তরটি দেখুন। আশা করি আপনার উত্তরও পেয়ে যাবেন।

এই সংখ্যার অন্যান্য শিক্ষা পরামর্শসমূহ পড়ুন

advertisement
advertisement