রজব ১৪৩৪ || মে ২০১৩

মুহাম্মাদ আবদুল্লাহ - ঢাকা

প্রশ্ন

আলমাদখালে (পৃষ্ঠা : ৯৩) আল্লামা তুরিবিশতী রাহ.-এর মৃত্যুসন ৬৬১ হিজরী উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু আলবিযাআতুল মুযজাতে (পৃষ্ঠা : ৭৩) আল্লামা তুরিবিশতী রাহ.-এর একটি বাণী এভাবে বর্ণনা করা হয়েছে-

وقع الفراغ من إنشاء هذا الكتاب في آخر جزء من أجزائه بالنهار من يوم الجمعة السادس من صفر سنة ست وستين وست مائة، ...

 এর দ্বারা বোঝা যায়, তাঁর মৃত্যু ৬৬৬ হিজরী বা এর পরে হয়েছে। বিষয়ে পথনির্দেশনা কামনা করছি।

 

উত্তর

‘‘আলমাদখাল’’-এর মধ্যে যা লেখা হয়েছে তা হুবহু ফকীর মুহাম্মাদ জাহলামী রাহ.-এরহাদাইকুল হানাফিয়্যাহ’ (প্রকাশনায় : মাকতাবায়ে হাসান সুহাইল লিমিটেডউর্দূ বাজারলাহোর)-এর২৮৫ পৃষ্ঠায় আছে। এছাড়াও যিরিকলী রাহ.-এর ‘আলআলাম’ (খন্ড : ,  পৃষ্ঠা : ১৫২ ইসমাঈল পাশাবাগদাদী রাহ.-এর ‘হাদিয়াতুল আরেফীনে (খন্ড : পৃষ্ঠা : ৮২১তা আছে।

আপনি আলবিযাআতুল মুযজাত-এর উদ্ধৃতিতে তুরাবিশতী-এর যে ইবারত উল্লেখ করেছেন তাহায়দারাবাদে সংরক্ষিত ‘‘আলমুয়াসসার’’-এর পান্ডুলিপি- উদ্ধৃতিতে লেখা হয়েছে। কিন্তু মুদ্রিত নুসখায়, (যার মূল পান্ডুলিপি প্রকাশকের ভাষ্যমতে মাহাদুল মাখতূতাতকায়রোতে আছেইবারতটি এভাবে আছে-

وقع الفراغ من إنشاء هذا الكتاب في آخر جزء من آخر النهار من يوم الجمعة السادس من صفر سنة ستين وست مئة، والحمد لله رب العالمين.

এতে ৬৬৬ এর পরিবর্তে ৬৬০ আছে। এই দিক থেকে উপরোক্ত মৃত্যুসনকে ভুল বলা যাবে না।

এখন  বিষয়টি ফয়সালা করতে হবে যেউপরোক্ত দুই তারিখের মধ্যে কোন তারিখটি মুসান্নিফেরসংশোধিত নুসখায় ছিল।  মুহূর্তে আমার জন্য এটি তাহকীক করা কঠিন। হয়তো কখনো এর সমাধান বেরহয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ। والله تعالى أعلم

এই সংখ্যার অন্যান্য শিক্ষা পরামর্শসমূহ পড়ুন

advertisement