জুমাদাল আখিরাহ ১৪৪১ || ফেব্রুয়ারি ২০২০

মুহাম্মাদ রোকনুদ্দীন - মুগদা

৫০৩৫. প্রশ্ন

আমাদের প্রেসে বিভিন্ন ধরনের বইপত্র ছাপানো হয়। এর মধ্যে ইসলামী কিতাবাদিও রয়েছে। (যেমন তাফসীর, হাদীসগ্রন্থ, দ্বীনী বিষয়ে বিভিন্ন কিতাবাদি)। গ্রাহকবৃন্দ আমাদেরকে যে ছাপার কাজগুলো দেন এর মধ্যে যেমন দুনিয়াবী বইপত্র থাকে তেমনি ইসলামী কিতাবাদিও থাকে। ছাপানোর সময় বিভিন্ন কারণে (যেমন মেশিনে সমস্যা হলে বা কাটিং যন্ত্র ঠিক মতো কাজ না করলে) উল্লেখযোগ্য পরিমাণ কাগজ উদ্বৃত্ত হয়। গ্রাহকদেরকে তাদের অর্ডার দেওয়া বইপত্র বা কিতাবাদি বুঝিয়ে দেওয়ার সময় সেই উদ্বৃত্ত কাগজগুলো দিয়ে আমরা বইগুলো বেঁধে দিই। যাতে বাঁধাইয়ের উপর দড়ির দাগ না পড়ে। এরপরও যেসব কাগজ অবশিষ্ট থাকে সেগুলো ভাঙ্গারির কাছে বিক্রি করে দিই। তারা সাধারণত ঠোঙা বানানোর কাজে এগুলো ব্যবহার করে থাকে। মুহতারামের নিকট জিজ্ঞাসা হল, এ কাগজগুলো এসব কাজে ব্যবহার করতে কোনো অসুবিধা আছে? অনুরূপভাবে এগুলো বিক্রি করা কি বৈধ হবে?

উত্তর

যেসব কাগজে আল্লাহ বা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নাম, কুরআনের আয়াত কিংবা দ্বীনী বিষয়াদি লেখা থাকে, সেগুলো অধিক সম্মানযোগ্য। তাই সে কাগজগুলো দিয়ে বইপত্র বেঁধে দেয়া কিংবা তা ভাঙারির কাছে বিক্রি করা জায়েয নয়।

আর প্রেসের যেসব কাগজে ঐসব বিষয়াদি নেই সেগুলো দিয়ে বইপত্র বেঁধে দেওয়ার অবকাশ আছে। তবে তা ভাঙারির কাছে বিক্রি করা উচিত নয়। কারণ সকল কাগজই সম্মানযোগ্য। এটি ইলমের একটি অন্যতম উপকরণ। সাধারণ ছাপানো কাগজ  বা বইপত্র অপ্রয়োজনীয় হয়ে গেলে তা পুড়িয়ে ফেলবে।

-খিযানাতুল আকমাল ৩/৪৮৫; আলমুহীতুল বুরহানী ৮/১২৮; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ৫/৩২২; রদ্দুল মুহতার ৬/৩৮৬

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement