রবিউস সানী ১৪৪১ || ডিসেম্বর ২০১৯

হাসমত আলী - আমেরিকা

৪৯৫১. প্রশ্ন

আমি একটি বারে চাকরি করি। ডিউটির সময় পরিবেশন করতে গিয়ে মাঝে মাঝে ইউনিফর্মে মদ লেগে যায়। একদিন ইউনিফর্মে কিছু মদ লেগে থাকা অবস্থায় নামাযের জন্য মসজিদে প্রবেশ করছিলাম। মুআযযিন সাহেব সেটা দেখে বললেন, মদ নাপাক, তা কাপড়ে লাগলে নামায হবে না।

হুযুরের কাছে আমার প্রশ্ন হল, মুআযযিন সাহেবের এই কথা কি ঠিক যে, মদ নাপাক? আমার নামায কি সত্যি শুদ্ধ হয়নি? না হলে এখন আমার করণীয় কী?

উত্তর

হাঁ, মুআযযিন সাহেব ঠিকই বলেছেন। মদ নাপাক। তা কাপড়ে বা শরীরে লাগলে নাপাক হয়ে যাবে। তা না ধুয়ে নামায হবে না। অবশ্য এক দিরহাম তথা হাতের তালুর গভীরতা পরিমাণ বা তার কম লাগলে সে অবস্থায় নামায পড়ে নিলে নামায আদায় হয়ে যাবে। তবে কোনো ওজর ছাড়া এমনটি করা ঠিক নয়।

উল্লেখ্য, মদ নিকৃষ্টতম হারাম ও নাপাক বস্তু। এর সাথে কোনো ধরনের সম্পৃক্ততাই বৈধ নয়। মদ পানকারীর ন্যায় মদ পরিবেশনকারীর উপরও হাদীসে লানত করা হয়েছে।

عَنْ بْنِ عَبْدِ اللهِ بْنِ عُمَرَ، عَنْ أَبِيهِ، أَنّ النّبِيّ صَلّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلّمَ قَالَ: لَعَنَ اللهُ الْخَمْرَ، وَلَعَنَ شَارِبَهَا وَسَاقِيَهَا، وَعَاصِرَهَا وَمُعْتَصِرَهَا وَبَائِعَهَا وَمُبْتَاعَهَا وَحَامِلَهَا وَالْمَحْمُولَةَ إِلَيْهِ وَآكِلَ ثَمَنِهَا.

আবদুল্লাহ ইবনে উমর রা. থেকে বর্ণিত, নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, আল্লাহ তাআলা লানত করেন- মদের উপর, লানত করেন তা পানকারী, পরিবেশনকারী, মদ প্রস্তুতকারী, যে প্রস্তুত করতে বলে, বিক্রেতা-ক্রেতা, বহনকারী, যার নিকট বহন করে নিয়ে যাওয়া হয় এবং তার মূল্য ভক্ষণকারী- সকলের উপর। -মুসনাদে আহমাদ, হাদীস ৫৭১৬

সুতরাং আপনার জন্য আবশ্যক হল, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব হালাল উপার্জনের ব্যবস্থা করা।

-মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা, বর্ণনা ২০৩৯, ২০৪০; বাদায়েউস সানায়ে ১/২০৬; মুখতারাতুন নাওয়াযিল ১/১৬৫; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/৪২; রদ্দুল মুহতার ১/৩১৭

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement