মুহাররম ১৪৪১ || সেপ্টেম্বর ২০১৯

মুবাশশির আহমেদ - হবিগঞ্জ, সিলেট

৪৮৭৭. প্রশ্ন

কয়েকদিন আগে আমার প্রবাসী পিতা তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমার আম্মাকে তিন তালাক দিয়ে দেন। বিষয়টি একজনকে জানালে তিনি দ্রুত আম্মাকে নানাবাড়িতে পাঠিয়ে দিতে বলেন। একথা শুনে তিনি বিমূর্ষ হয়ে পড়েছেন। এই বৃদ্ধ বয়সে নানাবাড়িতে কীভাবে যাবেন? এ করুণ পরিস্থিতিতে জনাবের কাছে জানার বিষয় হল,

১. এখন কি বাস্তবেই আম্মাকে নানাবাড়িতে পাঠিয়ে দিতে হবে?  আমরা চাচ্ছি, তিনি আব্বুর স্ত্রী হিসাবে না থাকলেও আমাদের দেখাশুনা ও পরিবারের নিয়ন্ত্রণের জন্য আব্বুর সংসারে থাকুন। এতে শরয়ী কোনো সমস্যা আছে কি না? এক্ষেত্রে আব্বুর টাকা দিয়ে তিনি নিজের ব্যয় নির্বাহ করতে পারবেন কি না?

২. আম্মার তালাকের ইদ্দতেও মৃত্যু পরবর্তী ইদ্দতের ন্যায় সাজসজ্জা ত্যাগ ইত্যাদি বিভিন্ন বিধান কার্যকর হবে কি না?

উত্তর

আপনার আম্মা ইদ্দত চলাকালীন আপনাদের বাড়িতেই অবস্থান করবেন এবং এ সময় আপনার বাবাকেই তার ভরণ-পোষণের ব্যয় নির্বাহ করতে হবে। কেননা ইদ্দতকালীন ভরণ-পোষণ ও বাসস্থান তালাকদাতা স্বামীর জিম্মায়। ইদ্দত শেষে তিনি অন্যত্র বসবাস করতে পারবেন। অবশ্য আপনার মা যেহেতু বৃদ্ধ হয়ে গেছেন আর বাবাও বাইরে থাকেন, পারিবারিক প্রয়োজনে মা যদি সন্তানদের সাথে থাকেন তবে তিনি আপনার বাবার অনুমতিতে এ বাড়িতেও অবস্থান করতে পারবেন এবং আপনার বাবা বা আপনারা তার ভরণ-পোষণের ব্যয়ও নির্বাহ করতে পারবেন। তবে আপনার বাবার সাথে সবসময় তাকে শরয়ী পর্দা রক্ষা করে চলতে হবে। ‘দ্রুত তাকে নানাবাড়িতে পাঠিয়ে দিতে হবে’ প্রশ্নের কথাটি ঠিক নয়। বিশেষত ইদ্দত চলাকালীন অন্যত্র পাঠিয়ে দেয়ার কথা বলা ভুল। কেননা স্বামীর বাড়িতেই ইদ্দত পালন করা জরুরি।

২. তিন তালাক পরবর্তী ইদ্দতেও মৃত্যু পরবর্তী ইদ্দতের ন্যায় সাজসজ্জা ত্যাগ করার বিধান রয়েছে এবং এক্ষেত্রেও বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া স্বামীর বাসস্থান থেকে বের হওয়া যাবে না। সফর করা যাবে না এবং অন্যত্র রাত্রি যাপন করা যাবে না।

-মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা, বর্ণনা ১৯২৯৭; আলমাবসূত, সারাখসী ৬/৫৮; তাবয়ীনুল হাকায়েক ৩/২৬৬; ফাতাওয়া তাতারখানিয়া ৫/২৫০

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement