মুহাররম ১৪৪০ || অক্টোবর ২০১৮

অহীদুজ জামান - সদরপুর, ফরিদপুর

৪৫৭৩. প্রশ্ন

আমাদের গ্রামের এক চাষী মান্নত করেছে যে, তার পালিত একটি গাভীর তৃতীয়বার বাচ্চা হলে দুধ খাওয়া শেষে সেটিকে আটরশির মাজারে দিয়ে দেবে। এক ব্যক্তি তাকে বুঝিয়েছে- সেখানে দিলে তোমার কোনো লাভ হবে না। তার চেয়ে গাভীটি বিক্রি করে টাকা মসজিদের নির্মাণকাজে দান করে দাও। কিন্তু সে তাতে সম্মত হয়নি। পরবর্তীতে তার শর্ত অনুযায়ী তৃতীয়বার বাচ্চা দেওয়া ও দুধ শেষ হওয়ার পর গাভীটি মারা গেছে। এখন সে কীভাবে ঐ মান্নত পুরা করবে।

উত্তর

মাজারে কোনো কিছু দেওয়ার মান্নত করা নাজায়েয ও শিরক। তাই এমন মান্নত করলে তা মান্নতই হয় না। বরং তা যেহেতু শিরকী কাজ তাই তা আদায় না করা জরুরি।

স্মরণ রাখা দরকার, মান্নত হচ্ছে একটি ইবাদত, যা একমাত্র আল্লাহর নামেই করা যায়। আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো নামে- যেমন পীরের নামে, মাজারের নামে মান্নত করা শিরকের অন্তর্ভুক্ত। হাদীস শরীফে এসেছে-

مَنْ نَذَرَ أَنْ يُطِيعَ اللهَ فَلْيُطِعْهُ، وَمَنْ نَذَرَ أَنْ يَعْصِيَهُ فَلاَ يَعْصِهِ.

অর্থাৎ কেউ ভালো কাজের মান্নত করলে সে যেন তা পুরা করে। আর কেউ গুনাহের মান্নত করলে সে যেন তা পূর্ণ না করে। -সহীহ বুখারী, হাদীস ৬৬৯৬

সুতরাং ঐ ব্যক্তি যেহেতু গুনাহের মান্নত করেছে তাই তাকে এর জন্য আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইতে হবে এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের মান্নত করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

-আলবাহরুর রায়েক ২/২৯৮; আদ্দুররুল মুখতার ২/৪৩৯; আলমুগনী ১৩/৬৪৩

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement