সফর ১৪৩৯ || নভেম্বর ২০১৭

মুহাম্মাদ সাঈদুর রহমান - কেন্দুয়া, নেত্রকোণা

৪২৪৩. প্রশ্ন

গত ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসে প্রচলিত ভুল শিরোনামে পেয়েছি যে, প্রত্যেক ফরজ নামাযের পর ৩৩ বার সুবাহানাল্লাহ, ৩৩ বার আলহামদুলিল্লাহ, ৩৩ বার আল্লাহু আকবার আর শত পূর্ণ করবে এই বলেÑ 

لَا إِلهَ إِلَّا اللَّهُ وَحْدَهُ لَا شَرِيكَ لَهُ لَهُ الْمُلْكُ وَلَهُ الْحَمْدُ وَهُوَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ .

আর এক রেওয়াতে আছে যে, প্রত্যেক ফরজ নামাযের পর ৩৩ বার সুবাহানাল্লাহ, ৩৩ বার আলহামদুলিল্লাহ, ৩৪ বার আল্লাহু আকবার পড়বে।

এখন আমার জানার বিষয় হলÑ এই উভয় আমল কি অভিন্ন নাকি ভিন্ন ভিন্ন, না এগুলোর মাঝে কোনো পার্থক্য রয়েছে। সঠিক সমাধান চাই।

উত্তর

প্রশ্নে বর্ণিত তাসবীহ সংক্রান্ত রেওয়ায়েতদুটি সহীহ মুসলিমসহ হাদীসের অন্যান্য নির্ভরযোগ্য কিতাবাদিতে বিশুদ্ধ সূত্রে বর্ণিত হয়েছে। মূলত এ দুটি ভিন্ন ভিন্ন আমল নয়। বরং একই আমলের দুটি পদ্ধতি। তাই দু’ভাবেই আমল করা যাবে।

কোনো কোনো মুহাদ্দিস বলেছেন, এভাবে আমল করা যেতে পারে যে, কখনো ৩৩ বার সুবহানাল্লাহ, ৩৩ বার আলহামদুলিল্লাহ, ও ৩৪ বার আল্লাহু আকবার পড়বে। আর কখনো সুবহানাল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ ও আল্লাহু আকবার ৩৩ বার করে পড়েÑ

لَا إِلهَ إِلَّا اللَّهُ وَحْدَهُ لَا شَرِيكَ لَهُ لَهُ الْمُلْكُ وَلَهُ الْحَمْدُ وَهُوَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ

দ্বারা শতক পূর্ণ করবে। (ফাতহুল মুলহিম ২/১৭৮)

আবার দুটি হাদীসের উপর একত্রে আমল করারও সুযোগ রয়েছে। যা ইমাম নববী রাহ. উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেনÑ

فَيَنْبَغِي أَنْ يَحْتَاطَ الْإِنْسَانُ فَيَأْتِيَ بِثَلَاثٍ وَثَلَاثِينَ تَسْبِيحَةً وَمِثْلُهَا تَحْمِيدَاتٌ وَأَرْبَعٍ وَثَلَاثِينَ تَكْبِيرَةً وَيَقُولُ مَعَهَا لَا إِلَهَ إِلَّا اللَّهُ وَحْدَهُ لَا شَرِيكَ لَهُ إِلَى آخِرِهَا لِيَجْمَعَ بَيْنَ الرِّوَايَاتِ.

অর্থাৎ ৩৩ বার সুবহানাল্লাহ, ৩৩ বার আলহামদুলিল্লাহ, ও ৩৪ বার আল্লাহু আকবার পড়ে একবারÑ

لَا إِلهَ إِلَّا اللَّهُ وَحْدَهُ لَا شَرِيكَ لَهُ لَهُ الْمُلْكُ وَلَهُ الْحَمْدُ وَهُوَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ

পড়লে উভয় রেওয়ায়েত অনুযায়ী আমল হয়ে যাবে। (শরহে মুসলিম, নববী ৫/৯৪)

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement