মুহাম্মাদ তারীফুজ্জামান - জামিয়া মুহিউস সুন্নাহ কওমী মাদরাসা যশোর

প্রশ্ন

 

মুহতারাম, আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। নিম্নে লিখিত প্রশ্নের সমাধান দেওয়ার আবেদন রইল।

) কিছু কিছু শিক্ষিত ভাইকে দ্বীনী দাওয়াত দেওয়ার আমার বিশেষ আগ্রহ। এজন্য তাফসীর ফী যিলালিল কুরআনের প্রণেতা সাইয়্যেদ কুতুবের জীবনী সম্পর্কে জানতে চাই। বিষয়ে কোন কোন কিতাবের সহযোগিতা নিতে পারি? সঠিক নির্দেশনা দিলে উপকৃত হব।

) শায়খ আবদুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহ রাহ.-এর জীবনী সম্পর্কে জানার জন্য কোন কিতাব অধ্যয়ন করতে পারি?


 

উত্তর

 

উত্তর : সাইয়্যিদ কুতুব শহীদের জীবন  কর্ম সম্পর্কে জানার জন্য পড়তে পারেন-‘‘সাইয়েদ কুতব মিনাল মীলাদ ইলাল ইসতিশহাদ’’, সালাহ আবদুল ফাত্তাহখালেদী। ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত ‘ইসলামী বিশ্বকোষদেখতে পারেন। তাঁর রচনা  কর্মের মূল্যায়ন  পর্যালোচনা সম্পর্কে নিচেররিসালাগুলো পাঠ করতে পারেন-

ইয়াতিমাতুল বায়ান ..., মাওলানা ইউসুফ বিন্নুরী রাহ.

আসরে হাজের মে দ্বীন কী তাফহীম ওয়া তাশরীহ। অথবা এর আরবী অনুবাদআততাফসীরুস সিয়াসী লিলইসলামমাওলানা আবুল হাসান আলী নদভী রাহ.

পুরানে চেরাগ/২৩-৩৮মাওলানা আবুল হাসান আলী নদভী রাহ.

দুআতুন লা কুযাতহাসান আল হুদায়বী রাহ. (যিনি শহীদ হাসানুল বান্নারাহ.-এর শহীদ হওয়ার পর ইখওয়ানুল মুসলিমীন-এর আমীর নির্বাচিত হন।)

المورد الزلال على أخطاء تفسير الظلال

আবদুল্লাহ ইবনে মুহাম্মাদ আদদরবেশ।

مطاعن سيد قطب في أصحاب رسول الله صلى الله عليه وسلم

রবী ইবনে হাদী আলমাদখালি

 

উত্তর : শায়খ আবদুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহ রাহ.-এর জীবনী সম্পর্কে ইতিমধ্যে বেশকয়েকটি কিতাব প্রকাশিত হয়েছে এবং আরো হবে ইনশাআল্লাহ। একাধিকবিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর কর্ম  অবদান সম্পর্কে বহু গবেষণাপ্রবন্ধ তৈরি হয়েছে। আপনিসহজেই যেসব কিতাবে তাঁর জীবনী পাঠ করতে পারেন তা হল-

শায়খ আবদুল ফাত্তাহ রাহ.-এর তাহকীক  তালীকসহ প্রকাশিত ‘লিসানুলমীযান’-এর মুকাদ্দিমা এবং তাঁর সংকলিত ‘সাফাহাত মিন সাবরিল উলামা আলাশাদাইদিল ইলমি ওয়াত তাহসীল’-এর ষষ্ঠ সংস্করণের ভূমিকাযা তাঁর সুযোগ্য পুত্রশায়খ সালমান আবদুল ফাত্তাহ লিখেছেন।

ইমদাদুল ফাত্তাহ বিআসানীদিশ শায়খ আবদুল ফাত্তাহশায়খ মুহাম্মাদ আর রশীদ।

আশশাযযাল ফাওয়াহ ফী আখবারি সাইয়িদি- শায়খ আবদুল ফাত্তাহশায়খমাহমূদ সায়ীদ মামদূহ।

নুকূশে রফতেগাঁমাওলানা তাকী উসমানী দামাত বারাকাতুহুম।

শাখসিয়াত ওয়া তাআসসূরাতমাওলানা ইউসুফ লুধিয়ানভী রাহ.

শেয়ার লিংক

মুহাম্মাদ লোকমান - সদর, নোয়াখালী

প্রশ্ন

আমি শরহে বেকায়া জামাতের একজন ছাত্র। হেদায়াতুন্নাহব থেকে লেখাপড়া ভালোভাবে না করায় এখন কিতাব বুঝতে হিমশিম খাচ্ছি। ইবারত পড়াও দুষ্কর লাগছে। তাই ভাবছিলাম, আলিয়ায় গিয়ে ভর্তি হব। কিন্তু আমার একজন শ্রদ্ধেয় উস্তাদ আমাকে বললেন আগামী বছর নাহু-ছরফ মাদরাসায় গিয়ে ভর্তি হতে। এখন জানতে ইচ্ছুক আগামী বছর আমি কি নাহু-সরফ মাদরাসায় গিয়ে ভর্তি হব, না এখন থেকে রমযান মাস পর্যন্ত সময়কে গনীমত মনে করে কাজে লাগানোর চেষ্টা করব। কিভাবে কাজে লাগালে আমার সমস্যা দূর হবে অর্থাৎ শুদ্ধভাবে ইবারত পড়তে পারব এবং কিতাব বুঝতে সক্ষম হব দয়া করে জানিয়ে উপকৃত করবেন।


উত্তর

এজন্য আলিয়ায় ভর্তি হওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। আপনি আপনার মনোবলআরো দৃঢ় করুন এবং অনতিবিলম্বে সহীহ তরীকায় মেহনত শুরু করুন। ইনশাআল্লাহআপনার দুর্বলতা অবশ্যই দূর হবে। সংক্ষেপে বলা যায়আপনি প্রথমে নিসাবেরকিতাবগুলো থেকে কিছু ইবারত আপনার কোনো উস্তাযকে শুনিয়ে সুনির্দিষ্টভাবে জেনেনিনইবারত না বুঝার ক্ষেত্রে আপনার দুর্বলতা কোন জায়গায় এবং তা কী ধরনের?এরপর তা দূর করার জন্য দৈনিক কিছু সময় ব্যয় করুন। এক্ষেত্রে আপনার করণীয় কী তাআপনার উস্তাযের কাছ থেকে জেনে নিন অথবা ‘তালেবানে ইলম : পথ  পাথেয়’ থেকেসংশ্লিষ্ট পরামর্শগুলো দেখে নিন। কোনো মুরবিবর তত্ত্বাবধানে দৈনিক একটু একটু করেমেহনত চালিয়ে যাওয়াই আপনার সমস্যার সমাধান। আল্লাহ আপনাকে সাহায্য করুন এবংতাওফীক নসীব করুন। আমীন।

শেয়ার লিংক

মুহাম্মাদ শিহাবুদ্দীন - আলহাদীস এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয় কুষ্টিয়া

প্রশ্ন

 

) আমি জরহ-তাদীলের ইমামগণের তবকা সম্পর্কে জানতে চাই। বিষয়ে কী কী কিতাব মুতালাআ করতে পারি। আল্লাহ তাআলা আপনাকে দীর্ঘায়ু দান করুন। আমীন।

) হাদীস সংকলনের ইতিহাস বিষয়ে আমি দীর্ঘ পড়াশোনার ইচ্ছা করেছি এবং বিষয়ে আমার একটি গ্রন্থ রচনার ইচ্ছা আছে। তাই বিষয়ে আরবী,উর্দু, বাংলা ইংরেজিতে লিখিত কিছু কিতাবের নাম উল্লেখ করলে উপকৃত হব।


 

উত্তর

জরহ-তাদীল-এর ইমামগণের পরিচয়মাকাম  মর্যাদা এবং তাবাকা  যামানাইত্যাদি বিষয়ে অবহিত হওয়া উলূমুল হাদীস-এর একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনি নিম্নোক্তকিতাবগুলোতে বিষয়টি অধ্যয়ন করতে পারেন :

তাকদিমাতুল জারহি ওয়াত তাদীলইমাম ইবনু আবী হাতিম (২৪০-৩২৭ হি.)

আলকামিল ফী জুয়াফাইর রিজালআবু আহমদ ইবনে আদী (২৭৭-৩৬৫ হি.)-এরমুকাদ্দিমাপৃষ্ঠা : ১১৭-২৪১

কিতাবুল মাজরূহীনমুহাম্মাদ ইবনে হিববান আলবুসতী (২৭০-৩৫৪ হি.)-এর মুকাদ্দিমা,পৃষ্ঠা : ৩৪-৬০

কিতাবুল মুযাক্কীন লিরুয়াতিল আখবারহাকেম আবু আবদিল্লাহ

নিশাপুরী (৩২১-৪০৫ হি.)  কিতাবটির কথা লেখক নিজে তার কিতাব ‘মারিফাতু উলূমিলহাদীস’-এর অষ্টাদশ অধ্যায়ে উল্লেখ করেছেন।

যিকরু মান ইউতামাদু কওলুহূ ফিল জারহি ওয়াত তাদীলহাফেয শামসুদ্দীন আযযাহাবী(৬৭৩-৭৪৮ হি.) রাহ.

হাফেয মুহাম্মাদ ইবনে আবদুর রহমান আসসাখাবী রাহরচিত ‘আলইলান বিততাওবীখলিমান যাম্মাত তারীখ’ (শেষ অনুচ্ছেদ

المتكلمون في الرجال

এবং ফাতহুল মুগীছ-এর ‘মারিফাতুছ ছিকাত ওয়ায যুয়াফা’ অধ্যায়। সাখাবী রাহ.-এর আলোচনা এবং যাহাবী রাহ.-এর উপরোক্ত রিসালা শায়খ আবদুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহরাহ.-এর তাহকীক-তালীকসহ প্রকাশিত ‘আর্রাফউ ওয়াত তাকমীল ’কিতাবে রয়েছে।

শায়খ আবদুল ফাত্তাহ রাহ.-এর তাহকীক-তালীকসহ প্রকাশিত ‘আররাফউওয়াততাকমীল’, মাওলানা আবদুল হাই লখনবী রাহ. (সংশ্লিষ্ট আলোচনা টীকাসহ)

. ‘উমারাউল মুমিনীনা ফিলহাদীস’, শায়খ আবদুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহ (১৩৩৬-১৪১৭ হি.)

এছাড়াও ইমাম আবু ইয়ালা খলীলী রাহ.-এর-

الإرشاد في معرفة علماء الحديث

হাফেয যাহাবী রাহ.-এর

تذكرة الحفاظ مع الذيول عليها

এবং ‘সিয়ারু আলামিন নুবালা’-এই কিতাবগুলোতে মুহাদ্দিসীন  নুক্কাদে হাদীসের জীবনীপাঠ করলেও তাঁদের তবাকা  মাকাম সম্পর্কে অনেক মালুমাত হাসিল হবে।

উত্তর : تاريخ صيانة السنة وتدوين الحديث

হাদীস  সুন্নাহর সংরক্ষণ  সংকলনের ইতিহাস সুদীর্ঘ  সু-প্রাচীন। হাদীস  সীরাত,উলূমুল হাদীস,  তারীখুল উলূম এবং ইতিহাস  জীবনী-গ্রন্থের বিপুল সম্ভারে  বিষয়েরঅনেক আলোচনা এবং বহু তথ্য-উপাত্ত ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। আর ইসতিশরাক  ইনকারেহাদীসের ফিতনা আরম্ভ হওয়ার পর তার মোকাবেলায় উলামায়ে কেরাম বিভিন্ন ভাষায় এতবই-পুস্তক  প্রবন্ধ-নিবন্ধ রচনা করেছেন যে বিষয়ে আলাদা একটি গ্রন্থাগার প্রস্ত্তত হয়েগেছে। এখানে আমি কয়েকটিমাত্র গুরুত্বপূর্ণ কিতাব  প্রবন্ধের নাম উল্লেখ করছি

ابتداء التدوين في صدر الإسلام

মুহাম্মাদ আব্দুল হাই কাত্তানী রাহ. (১৩০৩-১৩৮২ হি.)

. ‘আলহাদীস ওয়াল মুহাদ্দিসূন’, শায়খ মুহাম্মাদ মুহাম্মাদ আবু যাহু (১৩২৭-১৪০৩ হিজরী)

. ‘আসসুন্নাহ কাবলাত তাদবীন’, মুহাম্মাদ আজাজ আলখাতীব

صحائف الصحابة رضي الله عنهم وتدوين السنة المشرفة

আহমদ আবদুর রহমান আসসুইয়ান

دلائل التوثيق المبكر للسنة والحديث

ইমতেয়াজ আহমদকরাচী ইসলামী ইউনিভার্সিটিপাকিস্তান।

. ‘আলওসাইকুস সিয়াসিয়্যাহ’, মুহাম্মদ হামীদুল্লাহ (১৩২৬-১৪২৩ হি.)

. ‘রাসূলে আকরাম কী সিয়াসী যিন্দেগী’, মুহাম্মদ হামীদুল্লাহ

.‘আসসুন্নাহ ফী আসরিন নবুওয়াহ’,  শায়খ আল আহমদী আব্দুল ফাত্তাহ খলীল এবং তাঁরআরেকটি কিতাব ‘আসসুন্নাহ বাদা আসরিন নুবুওয়াহ

معرفة النسخ والصحف الحديثية

শায়খ বকর ইবনে আব্দুল্লাহ আবু যায়েদ

১০. ‘তাদবীনে হাদীস’ (মূল উর্দূমাওলানা মানাযির আহসান গিলানী (১৩১০-১৩৭৬ হি.)

এর আরবী অনুবাদ করেছেন আব্দুর রাযযাক ইস্কান্দার। এতে নববী যুগ থেকে খলীফায়েরাশেদ আলী রা.-এর যুগ পর্যন্ত হেফাজত হাদীসের ইতিহাস সন্নিবেশিত হয়েছে।

১১دراسات في الحديث النبوي وتاريخ تدوينه

মুহাম্মদ মুস্তফা জমী। এটি হাদীস সংকলনের ইতিহাস সংক্রান্ত একটি প্রামাণ্য তথ্যবহুল গ্রন্থ।

الإمام ابن ماجه وكتابه السنن

বা

ما تمس إليه الحاجة لمن يطالع سنن ابن ماجه

 (এক কিতাবের দুই নামএবং ‘ইবনে মাজাহ আওর ইলমে হাদীস’, মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুররশীদ নুমানী রহএই কিতাব দুটি হাদীস  ফিকহ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ  তথ্যের পাশাপাশিসাহাবাতাবেয়ীন  তাবে-তাবেঈনের যুগে হাদীসের ইতিহাসহাদীস শাস্ত্রে তাঁদের মানহাজ পরবর্তী যুগের তুলনামূলক বিশ্লেষণ ইত্যাদি বিষয়ে সারগর্ভ  নির্ভরযোগ্য স্বতন্ত্র কিতাবেরমর্যাদা রাখে।

১৩লাহোর থেকে প্রকাশিত মাসিক উর্দূ পত্রিকা ‘মাহনামা মুহাদ্দিস’-এর ‘ইনকারে হাদীসবিষয়ক সংখ্যা। এতে হাদীস অস্বীকারের ফেতনাহাদীসের হেফাজত  সংকলনের ইতিহাসসম্পর্কে প্রবন্ধ-নিবন্ধ ছাড়াও উপমহাদেশে ইনকারে হাদীসের ফিতনার প্রেক্ষাপটে  সংক্রান্তযত গ্রন্থলিটারেচার  গবেষণাপত্র লেখা হয়েছে তার তালিকা  নির্ঘণ্ট পেশ করা হয়েছে।এছাড়া

حجية الحديث ومكانة السنة

বিষয়ে লিখিত কিতাবাদি এবং  বিষয়ে মুনকিরীনে হাদীস  মুসতাশরিকীনের সৃষ্ট বিভিন্নসন্দেহ  সংশয়ের খন্ডনে রচিত কিতাবসমূহ থেকেও হাদীস সংকলনের ইতিহাস পাঠ করাযায়। যেমন-

মুস্তফা সিবায়ী রাহ.-এর

السنة ومكانتها في التشريع الإسلامي

আবদুর রাযযাক হামযা (১৩০৮-১৩৯২ হি.)-এর

ظلمات أبي رية أمام أضواء السنة المحمدية

শায়খ আবদুর রহমান ইবনে ইয়াহইয়া আলমুয়াল্লিমী (১৩১৩-১৩৮৬ হি.) লিখিত

الأنوار الكاشفة لما في كتاب أضواء على السنة من الزلل والتضليل والمجازفة

শায়খ আবদুল গনী আবদুল খালেক (১৩২৬-১৪০৩ হি.)-এর ‘হুজ্জিয়াতুস সুন্নাহ

মাওলানা হাবীবুর রহমান আজমী (১৩১৯-১৪১২ হি.)-এর

نصرة الحديث في الرد على منكري الحديث

 (মূল উর্দু ভাষায় রচিতআরবী অনুবাদ করেছেন মাসউদ আহমদ আজমী)

মুহাম্মাদ আবু শাহবাহ-এর

دفاع عن السنة

এবং  জাতীয় আরো অনেক কিতাব।

আলোচ্য বিষয়ে আরো বিস্তৃত  গবেষণামূলক পড়াশোনার জন্যে আপনাকে আরো কী কীকরতে হবে তা উপরোক্ত দুই ধরনের কিতাব মনোযোগ সহকারে অধ্যয়ন করলে জানতেপারবেন ইনশাআল্লাহুল আযীয। আমি এখানে কয়েকটি বিষয়ের প্রতি

ইঙ্গিত করছি-

হাদীস  আছার এবং সিয়ার  শামায়েলের কিতাবগুলো হাদীস সংকলনের ইতিহাসেরমৌলিক উপাদান।

ঐসব কিতাবে  খায়রুল কুরূনের ইতিহাস সম্পর্কিত সকল কিতাবে হাদীস সংকলন সংক্রান্তবিভিন্ন ঐতিহাসিক তথ্য-উপাত্ত বিক্ষিপ্তভাবে বিদ্যমান রয়েছে।

সিয়ার  মাগাযী যেহেতু মূলত ইলমুল হাদীসেরই একটি অংশ তাই এর ইতিহাসওআপনাকে পাঠ করতে হবে নির্ভরযোগ্য উৎস থেকে।

অনুরূপভাবে আততাফসীর বিলমাছূরও ইলমুল হাদীসেরই গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তাই এরইতিহাস  ক্রমবিকাশও হাদীস সংকলনের ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ।

সাহাবীতাবেয়ী  তাবে তাবেয়ী তথা সালাফের আছার এবং ফিকহ  ফতোয়াওহাদীসের সাথে সম্পর্কযুক্ত। সুতরাং ফিকহুস সলফের ইতিহাসও ইলমুল হাদীসের ইতিহাসেরইএকটি অধ্যায়।

সাহাবায়ে কেরাম  পরবর্তী যুগের আহলে ইলমের ‘ইলমী যিন্দেগী’ অধ্যয়ন করলেওঅনেক তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা যাবে।

সাহাবাতাবেয়ীন  তাবে-তাবেয়ীন যুগের তালীম  তারবিয়াতের ইতিহাসের উপর বেশকিছু কিতাবও রচিত হয়েছে। সেগুলো থেকেও সহযোগিতা নেওয়া যেতে পারে।

.‘গ্রন্থ  গ্রন্থাগার’ একটি স্বতন্ত্র ফন  শাস্ত্র।  বিষয়ে যেসব কিতাব রচিত হয়েছে তাথেকেও ইস্তিফাদা করা যেতে পারে।

বিশ্বের প্রাচীন কুতুবখানাগুলোর মাখতূতাত তথা পান্ডুলিপিসমূহ এবং মাতবূয়াত তথামুদ্রিত কিতাবসমূহের পরিচিতি  ইতিহাসের উপর লিখিত গ্রন্থগুলোও আলোচ্য বিষয়েরগুরুত্বপূর্ণ তথ্যসূত্র।

শেয়ার লিংক

মুহাম্মাদ আদিল - চট্টগ্রাম

প্রশ্ন

কিছু পড়ে ইসতিদাদ অর্জন করা যায়। তবে তাহকীকী ইলম ইলমের গভীরতার জন্য প্রচুর পড়াশোনা জরুরি। কিন্তু ...


উত্তর

ফোনে অথবা সরাসরি সাক্ষাতে আলোচনা করে আপনার প্রশ্নের জবাব জেনে নিন।

শেয়ার লিংক
advertisement
advertisement