রবিউল আউয়াল ১৪৪১ || নভেম্বর ২০১৯

সোহেল খান - নড়িয়া, শরীয়তপুর

৪৯২৮. প্রশ্ন

মুহতারাম! সাধারণত আমাদের এলাকায় শবে বরাত, শবে কদর ও ঈদুল ফিতরের দিন গরু জবাই হয়ে থাকে। যারা জবাই করেন তারা পেশাদার কসাই নয়; বরং অন্যান্য পেশার হয়ে থাকেন। তারা গরু কেনার পর এলাকার লোকজন থেকে অগ্রিম টাকা নিয়ে নেয়। আবার কারো থেকে শুধু গোস্ত নেওয়ার প্রতিশ্রুতি নিয়ে নেয়। সে সময় তারা শুধু এতটুকু বলে যে, ৭০ হাজার টাকা দিয়ে গরু কিনেছি। ৮০ ভাগ করব। প্রতি ভাগ এক হাজার টাকা করে। এরপর নির্ধারিত দিনে গরু জবাই করে এবং পূর্বের ওয়াদা অনুযায়ী ভাগ করে দেয়। মুফতী সাহেবের নিকট জানতে চাচ্ছি, এভাবে অগ্রিম টাকা নিয়ে গোশত বিক্রি করা বৈধ হবে কি না?

উল্লেখ্য যে, তারা অনুমান করে একটি ধারণা দিয়ে দেয় যে, প্রতি ভাগে কতটুকু করে গোশত পাবে।

উত্তর

প্রশ্নোল্লেখিত পদ্ধতিতে অগ্রিম টাকা নিয়ে পরবর্তীতে গোশত দেওয়া-নেওয়া জায়েয। এক্ষেত্রে ক্রয়-বিক্রয় সংঘটিত হবে গোশত প্রদানের সময় গ্রাহক কর্তৃক তা বুঝে নেওয়ার মাধ্যমে। এর আগে বিক্রেতা যে টাকা সংগ্রহ করে থাকে তা বিক্রির ওয়াদা হিসেবে ধর্তব্য হবে।

Ñফাতাওয়া ওয়ালওয়ালিজিয়া ৩/১৪৯; ফাতাওয়া খানিয়া ২/১১৬; আলবাহরুর রায়েক ৫/২৭৪; রদ্দুল মুহতার ৪/৫১৬

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement