রবিউল আউয়াল ১৪৪১ || নভেম্বর ২০১৯

সফিউল্লাহ মাহমুদ - পাবনা

৪৯২৩. প্রশ্ন

এবার রমযানে অসুস্থতার কারণে আমার একটি রোযা ভাঙা পড়ে। শাওয়াল মাসে একদিন ঐ রোযার কাযা করার উদ্দেশ্যে একটি রোযা রাখতে মনস্থ করি। কিন্তু সুবহে সাদিকের আগে ঘুম না ভাঙায় আযান হওয়ার পরপরই রোযার নিয়ত করে নিই। এদিকে বেলা বাড়ার আগেই পুনরায় অসুস্থতা বোধ করতে থাকি এবং ওষুধ সেবনের প্রয়োজনে রোযাটা ভেঙ্গে ফেলি। এখন আমি আপনার কাছে জানতে চাচ্ছি, রমযানের ঐ রোযা কাযা করতে গিয়ে ওযরবশত ভেঙ্গে ফেলার কারণে আমাকে কি অতিরিক্ত আরেকটি কাযা রোযা রাখতে হবে? জানিয়ে আশ্বস্ত করবেন।

উত্তর

কাযা রোযার জন্য রাতে (অর্থাৎ সুবহে সাদিকের আগে) নিয়ত করা আবশ্যক। প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে সুবহে সাদিকের পর নিয়ত করার কারণে তা রমযানের কাযা হিসাবে শুরুই হয়নি। বরং নফল রোযা হিসাবে শুরু হয়েছিল। পরে অসুস্থতার কারণে তা ভেঙ্গে ফেলা দূষণীয় হয়নি। আর মাসআলা না জানার কারণে যেহেতু অসময়ে কাযার নিয়ত করা হয়েছে তাই সেটি ভেঙ্গে ফেলার কারণে এখন এর জন্য পৃথক রোযা কাযা করা ওয়াজিব হবে না। শুধু  রমযানের ঐ রোযার কাযা আদায় করে নিলেই চলবে। অবশ্য ভেঙ্গে ফেলা (নফল) রোযাটির কাযা করা উত্তম হবে।

Ñখুলাসাতুল ফাতাওয়া ১/২৫২; আততাজনীস ওয়াল মাযীদ ২/৩৭১; ফাতহুল কাদীর ২/২৪২; জামেউর রুমুয ১/৩৫১; আলবাহরুর রায়েক ২/২৬২

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement