রবিউল আউয়াল ১৪৪১ || নভেম্বর ২০১৯

রুকনুদ্দীন মাহমুদ - মাদানী মঞ্জীল, সিলেট

৪৯১৯. প্রশ্ন

১. নামাযে গলা খাঁকারি দেওয়ার হুকুম কী? কেউ যদি ইচ্ছাকৃত দেয় তবে কী হুকুম? অনিচ্ছাকৃত দিলে কী হুকুম? কেউ যদি অভ্যাসের কারণে দেয়, (সে চেষ্টা করেও অভ্যাস ছাড়তে পারছে না) বা গলার সমস্যার কারণে দেয় তবে কী হবে?

২. কাশি দেওয়ার কী হুকুম? কোন্ অবস্থায় জায়েয, কোন্ অবস্থায় নাজায়েয? মাসআলাগুলোর সমাধান জানালে কৃতজ্ঞ থাকব। জাযাকুমুল্লাহ।

উত্তর

১. নামাযের মধ্যে গলায় কফ জমার কারণে বা এ ধরনের কোনো ওজরের কারণে যদি গলা খাঁকারি দেওয়া হয় তাহলে নামাযের কোনো ক্ষতি হবে না। তবে বিনা ওজরে এমন করলে মাকরূহ হবে।

২. নামাযে কাশি চলে আসলে নামাযের কোনো ক্ষতি হয় না। তবে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি কাশি দিবে না। কেননা বিনা প্রয়োজনে কাশি দিলে কখনো নামায ভেঙ্গে যাওয়ার আশংকা থাকে।

Ñআলমুহীতুল বুরহানী ২/১৫১; তাবয়ীনুল হাকায়েক ১/৩৯২; হালবাতুল মুজাল্লী ২/২৫৬; শরহুল মুনয়া পৃ. ৩৫১, ৪৪৮; আলবাহরুর রায়েক ২/৫; মাজমাউল আনহুর ১/১৭৯

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement