যিলকদ ১৪৪০ || জুলাই ২০১৯

সালমান আহমাদ - মোমেনশাহী

৪৮০৬. প্রশ্ন

কিছুদিন আগে আমার মেয়ের একটি ছেলেসন্তান জন্ম হয়। নার্সরা নাতিকে আমাদের কোলে দেওয়ার পর তার কানে আযান দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নেই। ঠিক তখনই যোহর নামাযের আযান হয়। আমরা মসজিদের আযানই যথেষ্ট মনে করে পুনরায় তার কানে আর আযান দেইনি। জানার বিষয় হল, মসজিদের আযানের দ্বারা কি নবজাতকের কানে আযান দেওয়ার সুন্নাত আদায়  হয়ে যায়? আর নবজাতকের কানে আযান দেওয়ার ক্ষেত্রেও কি حي على الصلاةحي على الفلاح  বলার সময় ডানে-বামে চেহারা ঘোরানোর নিয়ম আছে? জানালে কৃতজ্ঞ থাকব।

উত্তর

সন্তান জন্মগ্রহণ করার পর তার কানে আযান দেওয়া একটি স্বতন্ত্র সুন্নত। হাদীসে এই আযান নবজাতকের কানের কাছে দেওয়ার কথা আছে। নামাযের আযান দ্বারা এই সুন্নত আদায় হবে না। তাই মসজিদে আযান হলেও নবজাতকের কানে পৃথকভাবে আযান দিতে হবে। সুনানে আবু দাউদের এক বর্ণনায়  এসেছে, আবু রাফে রা. বলেন-

رَأَيْتُ رَسُولَ اللهِ صَلّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلّمَ أَذّنَ فِي أُذُنِ الْحَسَنِ بْنِ عَلِيٍّ حِينَ وَلَدَتْهُ فَاطِمَةُ بِالصّلَاةِ.

আমি রাসূলুল্লাল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে হাসান বিন আলী রা. জন্মগ্রহণ করার পর তার কানে নামাযের আযানের মত আযান দিতে দেখেছি। -সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ৫১০৫

বিখ্যাত মুহাদ্দিস মোল্লা আলী কারী রাহ. উক্ত হাদীস উল্লেখ করে বলেন-

وَهَذَا يَدُلّ عَلَى سُنِّيّةِ الْأَذَانِ فِي أُذُنِ الْمَوْلُودِ.

এই হাদীস দ্বারা প্রমাণিত হয় যে, নবজাতকের কানে আযান দেওয়া সুন্নত। -মিরকাতুল মাফাতীহ ৮/৮১

আর ফকীহগণ বলেছেন, নবজাতকের কানে আযান দেওয়ার ক্ষেত্রেও মূল আযানের মত حي على الصلاةحي على الفلاح বলার সময় ডানে বামে চেহারা ঘোরানো উত্তম।

-আলমুহীতুল বুরহানী ২/৮৯; রদ্দুল মুহতার ১/৩৮৫; আততাহরীরুল মুখতার, রাফেয়ী ১/৪৫; ইমদাদুল ফাতাওয়া ১/১০৮

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement