মুহাররম ১৪৪০ || অক্টোবর ২০১৮

মুহাম্মাদ সুহাইলুর রহমান - বি. বাড়িয়া

৪৫৯০. প্রশ্ন

আমরা জানি ইসলামী শরীয়তে সব ধরনের তাছবীর (ছবি) বানানো বা যান্ত্রিক উপায়ে তোলা নিষিদ্ধ। কিন্তু বর্তমান সমাজে কেউ কেউ ছবি ছাপানোকে জায়েয বলেন এবং যেই ছবিকে সম্মান প্রদর্শন করা হয় না, সেই সব ছবিকে জায়েয বলে দাবি করছে।

এ বিষয়ে হযরতের নিকট হাওয়ালাসহ বিস্তারিত জানতে চাই।

উত্তর

প্রচারপত্রে ছবি ছাপানো নাজায়েয। ছবির প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা না হলেও একান্ত প্রয়োজন ছাড়া ছবি প্রিন্ট করা নাজায়েয।

প্রকাশ থাকে যে, হাদীসে ব্যাপকভাবে যে কোনো প্রাণীর ছবি বানানো ও নির্মাণ করতে নিষেধ করা হয়েছে এবং এ ব্যাপারে কঠোর ধমকি এসেছে। চাই তার সম্মান করা হোক বা না হোক।

সহীহ বুখারীতে আছে, আবদুল্লাহ বিন মাসউদ রা. বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি,

إِنّ أَشَدّ النّاسِ عَذَابًا عِنْدَ اللهِ يَوْمَ القِيَامَةِ المُصَوِّرُونَ.

কিয়ামত দিবসে সবচেয়ে কঠিন আযাবের সম্মুখীন হবে ছবি অঙ্কনকারীরা। (সহীহ বুখারী, হাদীস ৫৯৫০)

হাদীসের কিতাবাদিতে ছবি বানানো ও নির্মাণের শাস্তির ব্যাপারে এজাতীয় আরো অনেক হাদীস বর্ণিত আছে। তদ্রƒপ প্রাণীর যে কোনো ধরনের ছবি ব্যবহারকেও হাদীসে নিষেধ করা হয়েছে। চাই তার সম্মান করা হোক বা না হোক। সহীহ বুখারীর এক হাদীসে এসেছে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সফরে থাকা অবস্থায় আয়েশা রা. তাঁর ঘরে ছবিবিশিষ্ট একটি পর্দা ঝুলিয়েছিলেন। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সফর থেকে ফিরে এসে তা ছিঁড়ে ফেলেন এবং ছবি সম্পর্কে ভয়াবহ শাস্তির কথা শোনান। (সহীহ বুখারী, হাদীস ৫৯৫৪)

এজাতীয় হাদীস ও আছারের ব্যাপকতাকে সামনে রেখে ইমাম নববী, ইবনে হাজার আসকালানী, বদরুদ্দীন আইনী ও মোল্লা আলী আলকারী প্রমুখ মুহাদ্দিসগণ বলেছেন, প্রাণীর যে কোনো ধরনের ছবি বানানো ও তার ব্যবাহর নাজায়েয ও হারাম; চাই তার সম্মান করা হোক বা না হোক। হাঁ, সাম¥ান করা হলে তার ভয়াবহতা তো আরো বেশি হবে এবং তা একধরনের শিরকতুল্য গোনাহ হবে।

আর ডিজিটাল ছবি উক্ত নিষেধাজ্ঞার অন্তর্ভুক্ত হওয়ার ব্যাপারে উলামায়ে কেরামের দুই ধরনের মত থাকলেও প্রিন্ট করা ও ছাপানো ছবি যে উক্ত নিষেধাজ্ঞার অন্তর্ভুক্ত- এ ব্যাপারে আরব অনারবের প্রায় সকল নির্ভরযোগ্য আলেম একমত। তবে পাসপোর্ট, আইডি কার্ড ইত্যাদি আইনগত প্রয়োজনে প্রিন্ট করা জায়েয হবে।

উল্লেখ্য, ডিজিটাল ছবির ব্যাপারে দুই ধরনের মত থাকলেও অনেক আলেমের দৃষ্টিতে অধিক নির্ভরযোগ্য মত হল এ প্রকারের ছবিও নিষেধাজ্ঞার অন্তর্ভুক্ত। তাই এ বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন জরুরি।

-শরহুন নববী ১৪/৮১; উমদাতুল কারী ২২/৭০; রদ্দুল মুহতার ১/৬৪৭; মিরকাতুল মাফাতীহ ৮/৩২৩; আলবাহরুর রায়েক ২/২৭

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement