মুহাররম ১৪৪০ || অক্টোবর ২০১৮

খালিদ ইমাম - বি. বাড়িয়া

৪৫৮৪. প্রশ্ন

গ্রামাঞ্চলে গাভী বর্গা দেওয়ার রেওয়াজ আছে। দুধ ও বাছুরে আধা-আধি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বর্গা দেওয়া হয়। একজন আলেম থেকে শুনেছি, এমন বর্গাচুক্তি জায়েয নয়। প্রশ্ন হল, কেউ এমন চুক্তি করে ফেললে সেক্ষেত্রে মালিক ও বর্গাগ্রহিতা কে কী পাবে?

উত্তর

প্রশ্নোক্ত গাভী-বর্গা পদ্ধতি শরীয়তসম্মত নয়। কেউ গাভী কিনে অন্যকে পালতে দিতে চাইলে তা ‘ইজারা’ তরীকায় হতে পারে। সেক্ষেত্রে নিম্নোক্ত বিষয়গুলো লক্ষ রাখতে হবে।

ক. চুক্তির শুরুতেই পালনকারীর পারিশ্রমিক নির্ধারিত হতে হবে এবং সে এই নির্ধারিত পারিশ্রমিকই পাবে।

খ. গাভীর খাবার, রক্ষণাবেক্ষণ ও চিকিৎসা খরচ মালিক বহন করবে।

গ. গাভীর দুধ ও বাছুর গরু মালিকেরই থাকবে। এতে পালনকারীর কোনো অংশ থাকবে না।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৮/৩৯৯; ফাতাওয়া বায্যাযিয়াহ ৫/৩৭; আলবাহরুর রায়েক ৮/৩৮; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ৩/১১৪; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ২/৩৩৫

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement