মুহাররম ১৪৪০ || অক্টোবর ২০১৮

মুহাম্মাদ আব্দুর রহীম - পাবনা

৪৫৭২. প্রশ্ন

এক ব্যক্তি তার স্ত্রীকে প্রায় এক বছর পূর্বে তার এক আত্মীয়ের সাথে কথা বলতে নিষেধ করে এবং বলে, তার সাথে সরাসরি অথবা ফোনে যে কোনোভাবে কথা বললে তালাক হয়ে যাবে। এরপর প্রায় এক বছর পর্যন্ত তার স্ত্রী ঐ ব্যক্তির সাথে কোনো কথা বলেনি। কিছুদিন পূর্বে বিশেষ এক প্রয়োজনে শুধু একটি ম্যাসেজ পাঠায়। উদ্দেশ্য ছিল গুরুত্বপূর্ণ একটি সংবাদ পৌঁছানো। অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল না। এখন স্বামী-স্ত্রী উভয়ে বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত। ম্যাসেজ পাঠানোর কারণে তালাক হয়েছে কি না? যদি হয়ে থাকে তাহলে তাদের করণীয় কী?

বিষয়টির গুরুত্ব বিবেচনা করে দ্রুত সমাধান জানিয়ে বাধিত করবেন।

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে স্ত্রীর ম্যাসেজ পাঠানোর কারণে কোনো তালাক পতিত হয়নি। কেননা তালাক হওয়ার জন্য শর্ত ছিল কথা বলা। তাই উক্ত স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক পূর্বের মত বহাল আছে।

উল্লেখ্য যে, তালাক হল বৈবাহিক সম্পর্ক ছিন্নকারী চ‚ড়ান্ত পদক্ষেপ। তাই সাধারণ কোনো বিষয় বা ঘটনাকে কেন্দ্র করে তালাক দেওয়া বা তালাকের শর্ত জুড়ে দেওয়া অন্যায়। এতে অনেক ক্ষেত্রে স্ত্রী-সন্তানের উপর জুলুমও করা হয়। তাই অত্যন্ত ভেবে চিন্তে আলেমদের সাথে পরামর্শ করে এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া বা কথা বলা উচিত।

-আলমাবসূত, সারাখসী ৯/২৩; আদ্দুররুল মুখতার ৩/৭৯১; ফাতাওয়া খানিয়া ২/১০৩; ফাতাওয়া ওয়ালওয়ালিজিয়্যাহ ২/২০২

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement