মুহাররম ১৪৪০ || অক্টোবর ২০১৮

মুহাম্মাদ ইবরাহীম - নোয়াখালী

৪৫৭১. প্রশ্ন

আমাদের প্রতিবেশী এক ব্যক্তি তার  স্ত্রীকে বিশেষ একটি ঘটনার কারণে বলেছিল যে, ‘আগামী দু’বছর পর্যন্ত আমার অনুমতি ছাড়া তোমার আব্বা-আম্মার সাথে ফোনে অথবা সরাসরি কোনোভাবেই কথা বলতে পারবে না। বললে প্রত্যেকবার এক তালাক হবে। এভাবে তিনবার বললে তিন তালাক হয়ে যাবে।

পরবর্তীতে সামাজিকভাবে দুই পরিবারের মাঝে সমঝোতা হলে সে তার স্ত্রীকে তাদের সাথে কথা বলার অনুমতি দিয়ে দেয়।

এখন তার স্ত্রী জানতে চাচ্ছে, একবারে পূর্ণ দুই বছরের জন্য অনুমতি দিয়ে দেওয়াই যথেষ্ট, না প্রতিবার কথা বলার সময় পৃথক অনুমতি নিতে হবে?

উল্লেখ্য, কথা বলতে নিষেধ করার পর থেকে মাত্র দু’মাস অতিবাহিত হয়েছে। দু’বছর পূর্ণ হতে আরো দীর্ঘ সময় বাকি। এ দীর্ঘ সময়ে প্রতিবার কথা বলার সময় অনুমতি নেওয়া অনেক কঠিন। এ পরিস্থিতিতে শরীয়তের হুকুম কী? দয়া করে জানিয়ে উপকৃত করবেন।

উত্তর

প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে যেহেতু স্ত্রীর কথা বলাটা স্বামীর অনুমতির সাথে শর্তযুক্ত ছিল তাই স্বামী যদি স্ত্রীকে বলে দেয় যে, তুমি যে কোনো সময় তোমার বাবা-মা’র সাথে কথা বলতে পারবে, তাহলে উক্ত শর্ত উঠে যাবে এবং এরপর থেকে স্ত্রী তার বাবা-মা’র সাথে যে কোনো সময় কথা বলতে পারবে। এভাবে অনুমতি দিয়ে দিলে পরবর্তীতে কথা বলার সময় আর অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন হবে না।

উল্লেখ্য যে, স্ত্রী কোনো অপরাধ করে থাকলেও তাকে এ ধরনের কঠিন শর্ত দেওয়া অন্যায় ও জুলুম। তাই স্বামীর জন্য তাওবা ইস্তিগফার করা আবশ্যক এবং স্ত্রীকে স্থায়ীভাবে তার মা-বাবার সাথে কথা বলার অনুমতি দিয়ে দেওয়া জরুরি।

-আলমুহীতুল বুরহানী ৫/১০৩; ফাতাওয়া হিন্দিয়া ১/৪৩৯; বাদায়েউস সানায়ে ৩/৭১

এই সংখ্যার অন্যান্য প্রশ্ন-উত্তর পড়ুন

advertisement
advertisement